বাগমারায় নিখোঁজ গৃহবধূ শাবানার সন্ধানের দাবীতে মানববন্ধন

হেলাল উদ্দীন, বাগমারা : রাজশাহীর বাগমারায় স্বামীর বাড়ি থেকে রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ গৃহবধূ শাবানা খাতুনের সন্ধানের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। রোববার (২৬ মে) বিকেলে উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের উদপাড়া গ্রামের মোড়ে নিঁখোঁজ শাবানার পরিবারবর্গ ও এলাকাবাসীর আয়োজনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। গৃহবধূ শাবানা নিখোঁজের প্রায় ১৬ দিন অতিবাহিত হলেও তার কোন সন্ধান করতে পারেনি আইন শৃংখলা বাহিনী। নিখোঁজের পরপরই বাগমারা থানায় গিয়ে সাধারণ ডাইরিও করা হয়। দীর্ঘ সময় পার হলেও শাবানার কোন সন্ধান না পাওয়ায় পরিবার সহ এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। জীবিত অথবা মৃত যে ভাবেই হোক শাবানার খোঁজ চায় তারা।

মানববন্ধনের মাধ্যমে জানা গেছে, গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের উদপাড়া গ্রামের শাহাদত হোসেনের ছেলে আসাদুল ইসলামের সঙ্গে প্রায় ১৫ বছর আগে একই গ্রামের আবু তাহেরের মেয়ে শাবানা খাতুনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য সংসারে দুটি পুত্র সন্তানের জন্ম হয়। শাবানার স্বামী আসাদুল ইসলাম আকিজ কোম্পানিতে চাকরির সুবাদে ময়মনসিংহের ত্রিশালে থাকেন। গত ১০ মে শাবানার স্বামী আসাদুল ইসলাম বাড়িতে আসেন। ওই রাতে স্বামী-স্ত্রীর মাঝে বাকবিতন্ডা বাধে। এরপর বিষয়টি নিয়ে উভয় পরিবারের আত্মীয়-স্বজনদের নিয়ে আসাদুলের বাড়িতে গভীর রাত পর্যন্ত বৈঠক হয়। পরের দিন সকালে শাবানাকে স্বামীর বাড়িতে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুনঃ   রাজশাহীতে তাপমাত্রা উঠলো ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে

নিখোঁজ শাবানার পরিবার ও এলাকাবাসীর দাবী আসাদুল ইসলাম এবং তার পরিবারের সদস্যরা শাবানাকে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলেছে। তারা আরো বলেন, বাড়ি থেকে ছেলের বউ নিখোঁজ হলেও কেন তারা নিশ্চুপ রয়েছে। এই নিশ্চুপের কোন না কোন রহস্য আছে। বিশেষ করে আসাদুলের বড় ভাই আলমগীর হোসেন পুলিশের সার্জেন্ট হওয়ার সুবাদে আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের প্রভাবিত করছে বলে দাবী এলাকাবাসীর। সে কারনে নিখোঁজ শাবানার সন্ধানে গুরুত্ব সহকারে কাজ করছেনা আইন শৃংখলা বাহিনী।

মানববন্ধনে নিখোঁজ শাবানার পিতা আবু তাহের প্রামানিক বলেন, আমার মেয়ে নিখোঁজ হয়নি। মেয়েকে তারা মেরে ফেলেছে। মেয়েকে যদি মেরে ফেলা হয়ে থাকে তাহলে তার লাশটা আমি চাই। বিয়ের পর থেকেই শাবানাকে জামাই আসাদুল ইসলাম সহ তার পরিবারের সদস্যরা নির্যাতন করে আসছে। সন্তানের কারনে শত নির্যাতন সহ্য করে সংসার করে আসছে। আমার মেয়ের কোন দোষ থাকলে আমাদেরকে জানাতে পারতো। কেন তাকে গুম করে রেখেছে।

আরও পড়ুনঃ   নগর পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার ১০ ও মাদকদ্রব্য উদ্ধার

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, গোয়ালকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল কাফি, ইউপি সদস্য লুৎফর রহমান, ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম, গোয়ালকান্দি ইউনিয়ন ছাত্রলীগ এর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়ন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সাধারন সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম মিঠু, সোহেল রানা, নিখোঁজ শাবানার বোন শামীমা খাতুন, শাবানার আপন চাচি ফাতেমা বেগম প্রমুখ। মানববন্ধনে পরিবারের সদস্য ছাড়াও প্রায় দুই শতাধিক নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে থানার ওসি অরবিন্দ সরকার বলেন, নিখোঁজ গৃহবধূকে উদ্ধারের জন্য পুলিশের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।