রাজশাহীতে হত্যা মামলার প্রধান আসামি ফরিদপুর থেকে গ্রেপ্তার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীর বাগমারা থানার একটি হত্যা মামলার প্রধান আসামিকে ফরিদপুর থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে র‍্যাব-১০ এর সহায়তায় ফরিদপুর সদর উপজেলার শরীয়ত উল্লাহ বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব-৫ এর সদস্যরা। গ্রেপ্তার আসামির নাম শরিফ হোসেন (২০)। বাগমারার জয়পুর গ্রামে তার বাড়ি। বাবার নাম আবদুল হাকিম।

বাগমারার জয়পুর গ্রামের বৃদ্ধ গহের আলীকে (৬৩) হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা মামলার প্রধান আসামি শরিফ। গত ৫ মে রাতে জয়পুর গ্রামে ওই খুনের ঘটনা ঘটে।

আজ বুধবার সকালে র‍্যাব-৫ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মুনীম ফেরদৌস তাঁর কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান।

আরও পড়ুনঃ   ঈদের পরদিনই পরিচ্ছন্ন নগরী পেলেন রাজশাহী মহানগরবাসী

র‍্যাব অধিনায়ক জানান, গত ৫ মে জয়পুর এলাকায় রাসেল নামে এক যুবকের মোটরসাইকেল নষ্ট হয়ে যায়। এ সময় ওই পথ দিয়ে যাচ্ছিলেন নিহত গহের আলীর নাতি মোটরসাইকেল মেকানিক মো. রাজু (১৮)। রাসেল তাকে তার মোটরসাইকেলটি মেকানিককে মেরামত করে দেওয়ার জন্য চাপ দেন। কিন্তু রাজু মোটরসাইকেল মেরামত করতে চাননি।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শরিফ হোসেন ও তার বাবা আবদুল হাকিম মেকানিক রাজুকে হাতুড়িপেটা করেন। রাজুর চিৎকারে পাশেই দোকানে বসে থাকা তার দাদা গহের আলী তাকে রক্ষায় এগিয়ে যান। এ সময় তাকেও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে আহত করা হয়। এতে ঘটনাস্থলেই গহের আলীর মৃত্যু হয়। এ নিয়ে নিহত গহের আলীর ছেলে বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেন।

আরও পড়ুনঃ   রাবি ছাত্রলীগ সম্পাদক গালিবকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

এই মামলা হওয়ার পর র‍্যাব ছায়াতদন্ত করছিল। গত ১৩ মে বিকেলে র‍্যাব সদস্যরা রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলা থেকে হাকিমকে গ্রেপ্তার করে। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ফরিদপুর থেকে মামলার প্রধান আসামি শরিফকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার তাকে থানায় হস্তান্তর করা হয়।