পাকিস্তানে গুলি চালিয়ে সাত নাপিতকে হত্যা

অনলাইন ডেস্ক : পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের আরব সাগর লাগোয়া শহর গোয়াদরে অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের হামলায় সেুলনের সাত কর্মী নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও কমপক্ষে একজন। বুধবার স্থানীয় সময় ভোর ৩টার দিকে গোয়াদরের সুরবন্দর জেলার একটি আবাসিক ভবনে ঢুকে এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বন্দুকধারীরা।

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তারা বলেছেন, সেলুনে কর্মরত ওই শ্রমিকরা রাতে ঘুমিয়েছিলেন। সেই সময় বন্দুকধারীরা বাসায় ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। এতে সাতজন নিহত ও অপর একজন আহত হয়েছেন।

গোয়াদরের জ্যেষ্ঠ পুলিশ সুপার জোহাইব মহসিন বলেছেন, রাত ৩টার দিকে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ভুক্তভোগীরা গোয়াদর থেকে প্রায় 25 কিলোমিটার দূরে সুরবন্দরের একটি সেলুনে কাজ করতেন।

আরও পড়ুনঃ   গুরুতর জখম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, হাসপাতালে ভর্তি

পাকিস্তানের অস্থিতিশীল দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় বেলুচিস্তান প্রদেশে ওই বন্দরনগরী অবস্থিত। যার সাথে আফগানিস্তান ও ইরানের সীমান্ত রয়েছে। বুধবারের ওই হামলার দায় কেউ স্বীকার করেনি।

বেলুচ বিচ্ছিন্নতাবাদী সশস্ত্র গোষ্ঠীর সদস্যরা অতীতে পূর্বাঞ্চলীয় পাঞ্জাব প্রদেশের শ্রমিকদের লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছে। প্রায় একই ধাঁচের হামলা চালিয়ে তাদের হত্যা করে বন্দুকধারীরা।

গত এপ্রিলে বেলুচিস্তানের স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী বেলুচ লিবারেশন আর্মি (বিএলএ) পাঞ্জাব প্রদেশে ৯ শ্রমিককে হত্যার দাবি করে। একটি বাস থামিয়ে একেবারে কাছে থেকে গুলি চালিয়ে হত্যা করা হয় ওই শ্রমিকদের।

আরও পড়ুনঃ   হজের ভিসায় নতুন বিধি-নিষেধ সৌদির

বেলুচ অধ্যুষিত অঞ্চল প্রাকৃতিকভাবেই সম্পদে সমৃদ্ধ। কিন্তু বেলুচ বিচ্ছিন্নতাবাদীদের অভিযোগ, ওই অঞ্চলের সবচেয়ে দরিদ্র জনগোষ্ঠী তারা। তাদের সম্প্রদায়ের সম্পদও দ্রুত কমে যাচ্ছে।

আয়তনে পাকিস্তানের বৃহত্তম প্রদেশ বেলুচিস্তান। গত কয়েক বছরে এই প্রদেশে ভয়াবহ প্রাণঘাতী হামলার ঘটনা ঘটেছে। পাকিস্তান থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন বেলুচ বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। ওই অঞ্চলের খনিজ সম্পদ একচেটিয়াভাবে উত্তোলন এবং শোষণের অভিযোগে দশকের পর দশক ধরে বিদ্রোহ করছেন তারা।