তীব্র গরমে পশ্চিমবঙ্গে স্কুল বন্ধ ঘোষণা

অনলাইন ডেস্ক : ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলোতে বৈশাখের শুরুতেই তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রির ঘরে। তীব্র দাবদাহে নাজেহাল মানুষ। দাবদাহের জেরে শিক্ষার্থীদের অবস্থা শোচনীয়। সাধারণত মে মাস থেকে গরমের ছুটি দেওয়া হয় স্কুলগুলোতে। গরমের তীব্রতা বাড়তেই ২২ এপ্রিল থেকে ছুটি ঘোষণা করে রাজ্যটির শিক্ষা অধিদপ্তর।

বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) রাজ্যের শিক্ষা অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

বলা হয়েছে, রাজ্যর কালিম্পং, কার্শিয়াং এবং দার্জিলিং ছাড়া অন্য সব জেলার সরকারি স্কুলগুলোতে ছুটি থাকবে। তীব্র দাবদাহের কারণে আগামী ২২ এপ্রিল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বলবৎ থাকবে এই ছুটি।

আরও পড়ুনঃ   সাইপ্রাস থেকে গাজার উদ্দেশে যাত্রা করবে ত্রাণবাহী জাহাজ : দাতব্য সংস্থা

সরকারি স্কুলগুলোর মতো বেসরকারি স্কুলগুলোকেও গরমের ছুটি এগিয়ে আনার কথা বিবেচনা করতে বলা হয়েছে শিক্ষা অধিদপ্তরের বিবৃতিতে। অতিরিক্ত ছুটির জন্য শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার যে ক্ষতি হবে, তা অতিরিক্ত ক্লাস করানোর মাধ্যমে পুষিয়ে নিতে পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ছুটি শেষে স্কুল কবে খুলবে, সে বিষয়ে আবহাওয়ার পরিস্থিতি বুঝে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য সরকার।

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নির্দেশিকায় আরও বলা হয়েছে, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও অশিক্ষক কর্মীরাও ছুটিতে থাকবেন। স্কুল না খোলা পর্যন্ত বিশেষ ছুটিতে থাকবেন তারা।

কলকাতার আলিপুর আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে অন্তত চার ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। এদিন কলকাতায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকতে পারে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। কলকাতার তাপমাত্রা পৌঁছাতে পারে ৪১ ডিগ্রিতে। পাশাপাশি দক্ষিণবঙ্গে তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রিতে পৌঁছে যাবে।

আরও পড়ুনঃ   ৩ লাখ সৈন্যকে উচ্চ-প্রস্তুত অবস্থায় রাখা হয়েছে: ন্যাটো

আবহাওয়া দপ্তর আরও জানিয়েছে, দক্ষিণবঙ্গজুড়ে জারি থাকবে গরম আবহাওয়ার সর্তকতা। কলকাতার পাশাপাশি হাওড়া, হুগলি, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পুরুলিয়া, মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ, বর্ধমান, বাঁকুড়া ও নদীয়া জেলায়ও তাপপ্রবাহের পরিস্থিতি তৈরি হবে। খুব শিগগিরই এই দহনজ্বালা থেকে মুক্তি পাওয়ার কোনো লক্ষণ নেই।