ইসরায়েলের বিরুদ্ধে পরবর্তী পদক্ষেপ কী, বড় ঘোষণা ইরানের

অনলাইন ডেস্ক : শনিবার রাত থেকে ইসরায়েলে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা চালিয়েছিল ইরান। এবার সে দেশের সেনাপ্রধান জানিয়েছেন, তাদের আক্রমণ সমস্ত লক্ষ্য অর্জন করেছে। আর হামলা চালিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্য নেই তাদের। যদি ইসরায়েলের পক্ষ থেকে কোনো হামলা হয়, সেক্ষেত্রে অবশ্যই পরবর্তী আক্রমণ আরও বড় হবে।

ইরান সেনার চিফ অফ স্টাফ মহম্মদ বাঘেরি বলেন, গত রাত থেকে আজ সকাল পর্যন্ত যে হামলা চালানো হয়েছে সেটি লক্ষ্য পূরণ করতে পেরেছে।
তার এমন মন্তব্য থেকে পরিষ্কার, আপাতত আর হামলা চালাবে না তেহেরান।

আরও পড়ুনঃ   যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে সাড়া দিয়েছে ইসরায়েল : হামাস

প্রসঙ্গত, গত ১ এপ্রিল সিরিয়ায় ইরানের দূতাবাসে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়। যেখানে অন্তত ১৩ জন প্রাণ হারান। নিহতদের মধ্যে ছিলেন দুজন ইরানি সেনাকর্তাও। এই হামলার প্রতিশোধ নিতে তেহেরানের এই ড্রোন-ক্ষেপণাস্ত্র হামলা। কিন্তু বেশির ভাগ ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্রই ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি ইসরায়েলের।

আরও পড়ুনঃ   আছড়ে পড়ল ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মার্কিন ও পশ্চিমা বিশ্বের রক্তচক্ষুর কারণেই ইরান এ লড়াইকে ‘সীমাবদ্ধ’ রাখতে বাধ্য হয়েছে। এ ‘সীমিত সংঘর্ষে’র মাধ্যমে ইসরায়েলকে বার্তাটুকু দিয়ে রাখাই উদ্দেশ্য ছিল ইরানের।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন নেতানিয়াহুর উদ্দেশে বলেছেন, ইসরায়েল যদি ইরানে পাল্টা আক্রমণ করে সেটা মেনে নেবে না ওয়াশিংটন।

ফোনে তিনি নেতানিয়াহুকে বলেন, আপনি জিতে গিয়েছেন। সেই জয়টা নিয়েই থাকুন। আগামী দিনেও ইসরায়েলকে সাহায্য করবে আমেরিকা।