ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণ ও অশ্লীল ভিডিও ধারণ

অনলাইন ডেস্ক : অনেকসময়ই এমন খবর পাওয়া যায় যে কোনো বিষয়ে প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ বা ধর্ষণের চেষ্টা। এবার এমন এক অভিযোগ উঠে এসেছে ভারতের এক প্রযোজনা সংস্থার প্রধানের বিরুদ্ধে।

উঠতি এক অভিনেত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে সম্প্রতি। বিনোদন জগতে প্রযোজনা সংস্থার বিরুদ্ধে অভিনেত্রী কেন্দ্রিক নানা রকম অভিযোগ পাওয়া যায়। তবে কারও কারও অভিযোগ প্রমাণের আগেই বিলীন হয়ে যায়।

মিউজিক ভিডিও এবং সিনেমায় কাজ দেয়ার নামে উঠতি এক অভিনেত্রীকে প্রলোভন দেখানো হয়। নিজের সঙ্গে ঘটে যাওয়া ওই ঘটনার বর্ণনা দিয়ে পুলিশে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী নারী। পরে সংস্থার চেয়ারম্যানসহ পাঁচজনের নামে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুনঃ   রাস্তায় ৪ তরুণীর মারামারি, দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে মজা নিচ্ছে পুলিশও

ভারতের উত্তর প্রদেশের লখনউয়ে ঘটনাটি ঘটেছে। শহরের এক বিনোদন ও প্রযোজনা সংস্থার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে ভুক্তভোগী নারী জানান, গত বছর অভিযুক্ত তার সঙ্গে দেখা করে বলেন, তার কাছে ৩-৪টি মিউজিক অ্যালবাম এবং সিনেমার অফার আছে। পরে ২০২৩ সালের ৯ মে তিনি আমাকে নিয়ে মুম্বাইয়ে একটি হোটেলে ওঠেন।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম থেকে জানা যায়, ওই নারী অভিযোগে বলেছেন, অভিযুক্তরা তাকে ঘুমের ওষুধ মেশানো পানীয় খেতে বাধ্য করেন এবং ধর্ষণ করেন। পরে অশ্লীল ভিডিও ধারণ ও বিভিন্ন অশ্লীল ছবি তুলেন। এইসব ভিডিও এবং ছবি দিয়ে তাকে ব্ল্যাকমেইল করে পরবর্তীতে হায়দ্রাবাদ, গুয়াহাটিসহ আরও অনেক শহরে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করতে থাকে।

আরও পড়ুনঃ   ১২ মিনিটে ইসরায়েলে পৌঁছাতে সক্ষম ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র

এ সময় বেশ কিছু ব্যবসায়ীর সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের জন্যও তাকে চাপ দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ করেন অভিনেত্রী। প্রতিবাদ করলে তার ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল করে দেয়া এবং তার পরিবারের সদস্যদের হত্যারও হুমকি দেয় অভিযুক্তরা।

এ বিষয়ে নাজিরাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কৌশলেন্দ্র প্রতাপ সিং বলেন, ওই নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (০২ এপ্রিল) আইপিসির প্রাসঙ্গিক ধারায় অভিযুক্ত এবং তার চার সহযোগীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।