গোদাগাড়ীর ধর্ষণ মামলায় একজন গ্রেপ্তার

স্টাফ রিপোর্টার : র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৫) এর সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ধর্ষণ মামলার এক আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে। র‌্যাব নাটোর ক্যাম্পের সদস্যরা জেলার সদর থানার কানাইখালী শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃতর নাম মামুন আলী (২৫)। তিনি গোদাগাড়ী থানার তাজেন্দ্রপুর এলাকার বারিক হোসেনের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, সাদ্দাম হোসেন ভিকটিমের নিকট প্রতিবেশী। ভিকটিম পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেছে। গত ১০ ফেব্রুয়ারী বিকেল সাড়ে চারটায় ভিকটিম গোদাগাড়ী থানার তাজেন্দ্রপুর মোল্লাপাড়া গ্রামের তার বাড়ীর পূর্ব পার্শ্বে এজাজুল হকের ভূট্টার জমিতে ছাগলের জন্য ঘাস কাটতে যায়। একই জমিতে সাদ্দাম হোসেন ঘাস কাটছিল। বিকেল সাড়ে ৫টায় সময় ঘাস কাটার একপর্যায়ে সাদ্দাম হোসেন ভিকটিমকে জোর পূর্বক ঝাপটাইয়া ধরে মুখে গামছা পেঁচিয়ে ভুট্টার জমিতে ভিকটিমের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে।

আরও পড়ুনঃ   দুর্গাপুরে শরীফ, বাগমারায় সান্টু ও পুঠিয়ায় আব্দুস সামাদ বিজয়ী

কিছুক্ষন পর মামুন হোসেন ঘটনাস্থলে আসে এবং সাদ্দাম হোসেনকে বলে, আমাকে ধর্ষণ করতে না দিলে আমি ঘটনা সম্পর্কে স্থানীয় লোকজনদেরকে বলে দিব। পরবর্তীতে মামুন ও সাদ্দাম পরস্পর যোগসাজজে একাধিকবার ভিকটিমকে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে ভিকটিমের মা বাদী হয়ে গোদাগাড়ী মডেল থানায় গণধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলার দায়ের পর থেকে আসামীরা আত্মগোপনে থাকেন ।

আরও পড়ুনঃ   পাবনায় প্রকাশ্যে স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা, স্বামী গ্রেপ্তার

মামলার তদন্তকারী অফিসার আসামীদের গ্রেফতারের জন্য র‌্যাব-৫ বরাবর অধিযাচনপত্র প্রদান করেন। এরই প্রেক্ষিতে র‌্যাব-৫ নাটোর ক্যম্পের সদস্যরা বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে মামুনকে গ্রেপ্তার। গ্রেপ্তারের পর তাকে গোদাগাড়ী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।