আইপিএলের সূচি পরিবর্তন

অনলাইন ডেস্ক : সর্বশেষ ওয়ানডে বিশ্বকাপে নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে বেশ কয়েকবার সূচি পরিবর্তন করতে দেখা গিয়েছিল। এবার একই কারণে চলতি আইপিএলের সূচিতেও পরিবর্তন আনা হয়েছে। আজ (মঙ্গলবার) এক বিবৃতিতে দুই ম্যাচের সূচি পরিবর্তনের কথা জানিয়েছে বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট অব ইন্ডিয়া (বিসিসিআই)। নিরাপত্তাজনিত কারণে এই পরিবর্তন এসেছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফো।

পূর্বনির্ধারিত সূচি অনুযায়ী, ইডেন গার্ডেনে কলকাতা নাইট রাইডার্স ও রাজস্থান রয়্যালসের মধ্যকার ম্যাচ হওয়ার কথা ছিল ১৭ এপ্রিল। সেটি একদিন এগিয়ে ১৬ এপ্রিল করা হয়েছে। এছাড়া আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে গুজরাট টাইটান্স ও দিল্লি ক্যাপিটালসের ম্যাচও একদিন এগিয়ে আনা হয়েছে ১৭ এপ্রিল। তবে ওই বিবৃতিতে ম্যাচ দুটির সূচি পরিবর্তনের কারণ জানায়নি আইপিএল কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুনঃ   পন্টিং-ল্যাঙ্গারদের দাবি উড়িয়ে দিলেন বিসিসিআই সচিব জয় শাহ

ক্রিকইনফো বলছে, ওই সময়ে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের রাম-নবমী উৎসব চলবে। এছাড়া ১৯ এপ্রিল থেকে ভারতের সাধারণ নির্বাচন শুরু হবে বিধায় নিরাপত্তাজনিত কারণ দেখিয়ে সূচি পরিবর্তনের অনুরোধ জানিয়েছে রাজ্য পুলিশ। ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গল (ক্যাব) সভাপতি স্নেহাশিষ গাঙ্গুলি কলকাতা পুলিশের বরাত দিয়ে জানিয়েছেন, ‘ম্যাচটি রাম-নবমির একই তারিখে পড়ে গেছে, কিন্তু ওই সময়ে নির্বাচনের জন্য নিরাপত্তা পরিকল্পনা আগে থেকেই সাজানো আছে। তাই ১৭ এপ্রিলের ম্যাচের জন্য বাড়তি নিরাপত্তা দেওয়া সম্ভব নয়।’

তবে এর আগে যখন আইপিএলের ম্যাচসূচি ঘোষণা করা হয়েছিল, এর পরই টিকিট বিক্রি হয়ে যায়। কিন্তু টিকিটের বিষয়টি নিয়ে নতুন করে কিছু বলেনি টুর্নামেন্ট কর্তৃপক্ষ। এর আগে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা না করায় শুরুতে আইপিএলের অর্ধেক সূচি ঘোষণা করা হয়েছিল। পরবর্তীতে ৮ এপ্রিল থেকে ২৬ মে পর্যন্ত পুরো সূচি চূড়ান্ত করা হয়। সাতটি ধাপে দেশটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। যেখানে বেঙ্গলে ১৯ এপ্রিল থেকে ১ জুন পর্যন্ত হবে ভোটগ্রহণ।

আরও পড়ুনঃ   হৃদয়-রিয়াদের ব্যাটে দেড়শ করল বাংলাদেশ

নিরাপত্তাজনিত কারণে ভারতে সূচি পরিবর্তনের ঘটনা নতুন নয়। গত ওয়ানডে বিশ্বকাপেও কালিপূজার কারণে কলকাতায় নির্ধারিত ইংল্যান্ড-পাকিস্তানের ম্যাচ একদিন এগিয়ে আনা হয়েছিল। নবরাত্রির কারণে আহমেদাবাদ পুলিশের অনুরোধে পরিবর্তন করা হয় ভারত-পাকিস্তানের বহুল কাঙ্ক্ষিত ম্যাচটিও। এছাড়া প্রায় একই কারণে (গণেশ চতুর্থী) পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দেওয়া সম্ভব নয় বলে হায়দরাবাদে নিউজিল্যান্ড ও পাকিস্তানের ম্যাচটি হয়েছিল ক্লোজড ডোর।